লকডাউনের মধ্যেই অভিনব কায়দায় নিজেদের বিয়ে

মালদা ১৯ মেঃ লকডাউনের মধ্যেই অভিনব কায়দায় নিজেদের বিয়ে সারলেন পুরাতন মালদার অনিমা মন্ডল এবং বামনগোলা ব্লকের পাকুয়াহাট এর বাসিন্দা দুর্লভ দাস। সামান্য কয়েকজন আত্মীয়-স্বজনের উপস্থিতিতে নক্ডাউনের নিয়ম মেনেই বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এই দম্পতি। অনিমা এবং দুর্লভের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল আগেই।

কিন্তু করোণা মহামারীর কারণে এই বিয়ের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়। আমন্ত্রিতদের তালিকায় কাটছাঁট করতে হয়। আত্মীয়-স্বজনদেরকে নিমন্ত্রণ করেও পিছিয়ে আসতে হয়। শেষ পর্যন্ত সোমবার সাদামাটাভাবেই বিয়ে শেষ হয় অনিতা এবং দুর্লভের। তবে নিজেদের বিয়েতে অনেক স্বপ্ন পূরণ না হলেও এক নতুন নজির তৈরি করেছেন এই নব দম্পতি। সন্ধ্যেবেলায় বিয়ের আগে পাত্রী অনিমা মন্ডলের পরিবার সোমবার দুপুরে প্রায় ৬০ জন মানুষের হাতে খাবার-দাবার তুলে দেন। এই খাবার দাবার দেওয়া হয় নিয়ম মেনেই।

পাত্রীর মা স্যানিটাইজার দিয়ে গরিব অভ্যাগতদের হাত ধুয়ে দেন প্রথমে। তার পরেই তাদের হাতে বিয়ে বাড়ির রান্না করা খাবার তুলে দেওয়া হয়। এই বিষয়ে পাত্রী অনিমা মন্ডল বলেন অনেকদিন থেকেই ইচ্ছা ছিল লোকজন ডেকে ধুমধাম করে বিয়ে করবো। বিয়ে জীবনে একবারই হয়। তাই অনেক স্বপ্ন ছিল। করোনার কারণে সেই স্বপ্ন ভেঙে গেছে। কিন্তু স্বপ্ন পূরণ হয়েছে অন্যভাবে।

আমি এবং আমার স্বামী আগেই ভেবেছিলাম বিয়েটাকে স্মরণীয় করে রাখতে মানুষের জন্য কিছু করতে হবে। তাই দুজনা পরিকল্পনা করে নিজেদের সাধ্যমত কিছু মানুষের হাতে খাবার-দাবার তুলে দিয়েছি।

ওই মানুষরা আমাদের আশীর্বাদ করেছেন। এতেই আমাদের বিয়ে সফল হয়েছে । যা দুঃখ ছিল সব মিটে গেছে। সবার সব স্বপ্ন পূরণ হয়না। কিন্তু করোনার কারণে যাদের পেটে টান পরেছে তাদের আশীর্বাদ আমাদের জীবনে খুব মূল্যবান। তাই এখন আর মনে কোন দুঃখ নেই। মুখে মাস্ক পরে সন্ধ্যাবেলায় বিয়ের আসরে বসেন অনিতা ও দুর্লভ। হাতেগোনা কয়েকজন পরিবারের সদস্যের উপস্থিতিতে শেষ হয় বিয়ে। ছবি ও তথ্য -রজ্ঞিত দাস