দিন কয়েক আগের ঝড়-বৃষ্টিতে মুর্শিদাবাদে ব্যাপক ক্ষতির সম্ভবনা ছিল আম ও লিচু চাষে। বেশ কয়েকদিনের শিলাবৃষ্টিতে বড়সড় ক্ষতির মুখে পড়লেন চাষীরা। বিঘের পর বিঘে জমিতে আম ঝরে যাওয়ায় কার্যত দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তারা। কিন্তু কয়েক দিনের অনুকূল আবহাওয়া চাষিদের মুখে হাসি ফুটিয়েছে। মুর্শিদাবাদের বিস্তীর্ণ এলাকায় আমের ফলন প্রথম দিকে নষ্ট হলেও এখন অবশ্য আবহাওয়া অনুকূল অধিক ফসলে হয়েছে বেশ কয়েকটি এলাকায়। কিছুটা পোকার আক্রমণ ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। আমের পাশাপাশি লিচুর ফলনও বেশ ভাল হয়েছে জেলায় । তবে খারাপ আবহাওয়ার জন্য আমে পোকা লাগার হাত থেকে বাঁচানো চেষ্টা চলছে স্প্রে করে। জমির পর জমি আম গাছে কীটনাশক স্প্রে করা হয়েছে পোকার আক্রমণ থেকে বাঁচাতে। মুর্শিদাবাদের কয়েকটি এলাকা সেই ভাবে ঝড়-বৃষ্টি হয়নি বলে ওই এলাকায় এবারে আমের ও লিচুর ফলন বেশ ভাল। বাজারে দামও পাওয়া যাবে মনের মতোন বলে আশা করেছেন চাষিরা, অন্যান্য বছরের মতন , আম ও লিচুর বেশ ভাল দাম পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। লিচুর দাম বাজারে ৭০ থেকে ৯০ টাকা কেজি, এবং আমের দাম ৪০ থেকে ৬০ টাকা কেজি, প্রথম দিকে ঝড়-বৃষ্টির কারনে যে লোকসানের মুখে পড়তে হয়েছে তা এখন অনেকটাইে পুরন করা গেছে। আম ও লিচুর ফলনও অন্যবারের তুলনায় ভাল হয়েছে বলে জানায় এক লিচু চাষী। এরই মধ্যে গাছ থেকে লিচু নামিয়ে নেওয়ার কাজও প্রায় শেষ। এবার লাভের মুখ দেখবে আশা রাখছেন লিচু ও আম চাষীদের একাংশ। ছবি ও তথ্য – এস গোষ্মামী