অবশেষে বাড়ি ফিরল কফিনবন্দি দেহ।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া থানার গোপালনগর গ্রামের 48 বছরের যুবক শেখ ইদ্রিস ও 32 বছরে শেখ মোহাম্মদ। রাজমিস্ত্রির কাজে আসাম কিংসুকিয়া থানা অন্তর্গত কাজ করতে গিয়ে খুন হতে হয়। গলার নলি কেটে খুন করে দুষ্কৃতীরা। এলাকাবাসীর অভিযোগ বাঙালি হওয়ার জন্য প্রাণ দিতে হয়েছে এই যুবক।

আজ কলকাতা দমদম বিমানবন্দরে কফিনবন্দি দেহ আছে। বিমানবন্দর থেকে পাঁশকুড়া গ্রামের কফিনবন্দি দেহ পৌঁছায়। শেষবারের মতো দেখতে এলাকার যুবককে ভিড় জমে যায়। কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে পরিবার। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঘটনাস্থলে পাঁশকুড়া থানার পুলিশ। ছবি ও তথ্য খোকন মিশ্র ও প্রসেনজিৎ রায়