পূর্ব মেদিনীপুর জেলার আজ প্রশাসনিক বৈঠক যোগ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়

আজ প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাজের খতিয়ান সহ বেশ কিছু আধিকারিককে কাজের ধমক দেন। বেশ কয়েক মাস নুলিয়া আরা বেতন পাচ্ছে না এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক রশ্মি কমল বলেন, সেপ্টেম্বর থেকে বকেয়া রয়েছে লুলিয়া দের বেতন জেলাশাসক জানান প্রতি মাসে প্রতিমাসে রিকু্্যইজিশান দিতে হবে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন কেন লাল ফিতের ফাঁসে আটকে থাকে লুলিয়া দের বেতন। প্রতি মাসে যারা কাজ করে তাদের কেন মাসে মাসে ইকু্্যইজিশান দিতে হবে। কেনই বা বেতন না পেয়ে তাদের মাসের পর মাস ভূক্তভোগী হতে হবে। এ প্রশ্নে জেলাশাসক জানান স্টাডিং অর্ডার পেলে তবেই বেতনও সময় মতন রিলিজ করা যাবে। মুখ্যমন্ত্রী জানান লুলিয়া রা 300 টাকা করে হিসেবে মাসে কমপক্ষে 25 দিনের মজুর পাবেন প্রতি মাসে 1 তারিখ তাদের বেতন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

দিঘা হোটেল মালিক কে জানান অবৈধ নির্মাণ করা যাবে না পর্যটকরা যাতে কোন রকম অসুবিধা নাই পরে সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে হোটেল মালিকের দিকে।

নন্দীগ্রামের কেস এর গতি আনারও নির্দেশ দেন সিআইডি অফিসার দিকে।

সাংবাদিক এর দিকে তমলুকে ও দীঘাতে সাংবাদিকের বসার জন্য জায়গার কথাও বলেন জেলাশাসক কে।

বিভিন্ন আধিকারিকদের সাথে খতিয়ান ও তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। সাধারণ মানুষ যাতে সুযোগ সুবিধা আরও দ্রুত পায় সেদিকে দেখার জন্য জেলাশাসক কে নির্দেশ দেন

আজ প্রশাসনিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, সাংসদ শিশির অধিকারী, তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারি, জেলাশাসক রেশ্মি কমল। এস পি ভি সলেমন নেশা কুমার। সমস্ত বিধায়ক, পৌর চেয়ারম্যান, সমস্ত আধিকারিক বিন্দ।
তথ্য – খোকন মিশ্র প্রসেনজিৎ রায়.