প্রেমিকের বাড়িতে ধর্না যুবতীর

একাধিকবার সহবাসের পর বিয়েতে নারাজ প্রেমিক-অবশেষে স্ত্রীর অধিকারের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে ধর্না যুবতীর
ঘটনা মুর্শিদাবাদের বড়ঞা থানার একপাহাড়িয়া গ্ৰামের। সূত্রের খবর,
বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দিনের পর দিন সহবাসের পর বিয়েতে না রাজ যুবক! অবশেষে প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েও সঠিক সমাধান না পেয়ে তার ন্যায্য অধিকারের দাবিতে যুবকের বাড়িতেই ধর্নায় বসলো বছর ২০র এক যুবতী।

জানা গেছে, বর্ধমান জেলার কেতুগ্ৰামের এই যুবতীর সাথে আড়াই বছর আগে প্রেমের সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছিল মুর্শিদাবাদের বড়ঞার একপাহারীয়া গ্ৰামের যুবক একরাম সেখ। কিন্তু এই যুবতীর এর আগেও একবার বিয়ে হয় ও তার দুটি সন্তান থাকার কারণে তাদের সম্পর্ক মানতে নারাজ যুবকের পরিবার এবং সেই কারণেই বর্তমানে যুবতীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে একরাম সেখ।

যদিও যুবতীর দাবি ,দীর্ঘদিন ধরেই ওই যুবক তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে একাধিকবার সহবাস করেছে।এবং এই কথা ওই যুবকের পরিবারের লোকজন ও জানতো। কিন্তু তাকে এখন বিয়ের কথা বলতে সে অস্বীকার করাই অবশেষে কোনো রাস্তা না পেয়ে গতকাল ওই যুবতী একপাহারিয়া গ্রামে এসে যুবকের বাড়ির লোকের সাথে কথা বলতে গেলে তাকে বেধড়ক মারধর করে যুবকের বাড়ির লোকজন । এমনকি তার মোবাইল ফোনে থাকা সমস্ত প্রমানো ডিলিট করে দিয়ে রাতে বাড়ি থেকে বের করে দেয় ওই যুবতীকে। পড়ে ঘটনার খবর দেওয়া হয় বড়ঞা থানার পুলিশকে।এবং পুলিশ এসে তাকে ধরনা তুলে নেওয়ার আবেদন জানালেও তার ন্যায্য অধিকার সহ ওই যুবকক তাকে বিয়ে না করা অবধি সে এই ধর্না চালিয়ে যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ কে। যদিও গতকাল রাত থেকেই এখনও অবধি ওই যুবকসহ তার পরিবারের লোকজন পলাতক। ছবি ও তথ্য – শোভন ব্যনার্জী